ঢাকা১৪ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. আরো
  4. এক্সক্লুসিভ
  5. খেলাধুলা
  6. জাতীয়
  7. দেশজুড়ে
  8. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  9. বিনোদন
  10. মতামত
  11. লাইফ স্টাইল
  12. শিক্ষাঙ্গন
  13. সম্পাদকীয়
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বাগেরহাটে আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ

admin
জুন ৩০, ২০২৪ ৫:৪৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক,

বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার রায়েন্দা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাজাহান বাদল জোমাদ্দার ও তার সহযোগিদের বিরুদ্ধে মাছ ব্যবসায়ীর জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার (২৫ জুন) দুপুরে ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিক মাছ ব্যবসায়ী আঃ রহিম হাওলাদার বাগেরহাট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এসব অভিযোগ করেছেন।

তিনি বলেন, ২০১৯ সালে উপজেলার আমড়াগাছিয়া মৌজায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আছাদুজ্জামান মিলনের মালিকানাধীন ৫১.৫০ শতক জমি কবলা মূলে ক্রয় করি। এরপর থেকে শান্তিপূর্ণভাবে ওই জমি ভোগ দখল করে আসছিলাম। ওই জমিতে আল আমিন ও পুতুল বেগম ভাড়া থাকতেন। কিন্তু ২০২৩ সালের ২১ জুন প্রভাবশালী শাজাহান বাদল জোমাদ্দার, জামাল বয়াতি ও জিয়া উদ্দিন একই দাগ থেকে ২৪.৮২ শতক জমি ক্রয় করেন।

এরপর থেকে তারা আমার জমি দখলের জন্য তারা পায়তারা করে আসছে। তাদের দলিলে যে চৌহর্দি রয়েছে, তা আমার জমির বিপরীতে। অর্থ্যাৎ আমার জমি সাইনবোর্ড বগী সড়কের পশ্চিম পাশে আর চৌহর্দি অনুযায়ী তাদের জমি পূর্ব পাশে।

এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার(২৪ জুন) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে শাজাহান বাদল জোমাদ্দার, জামাল বয়াতি ও জিয়া উদ্দিনের নেতৃত্বে জাহাঙ্গীর শিকদার, সাগর জোমাদ্দার, সাইফুল ইসলাম শুভসহ ২৫-৩০ জন আমার ওই জমিতে প্রবেশ করে ঘর-বাড়ি ভাংচুর করে ও লুটতরাজ চালায়। ভাড়াটিয়াদের মারপিট করে ঘর থেকে বের করে দেয়। ওই ঘরে থাকা মূল্যবান মালামাল লুট করে নিয়ে যায়, যার মূল্য ১ লক্ষ ১০ হাজার টাকা এবং ভাংচুর করে অন্তত এক লক্ষ টাকার ক্ষতি করে।

দ্বিতীয় দফায় (মঙ্গলবার) সকালে ওই জমিতে থাকা অণ্য একটি ঘর ভাংচুর করে। পরে পুলিশকে জানালে পুলিশ ঘর ভাংচুর বন্ধ করে দেয়। তারা এখনও আমার জমি দখল করে আছে। আমি যেকোন মূল্যে আমার জমি ফিরে চাই।

এ বিষয়ে রায়েন্দা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাজাহান বাদল জোমাদ্দার বলেন, আমি কারও জমি দখল করিনি। আমি ওই জমি ক্রয় করেছি। জমিতে থাকা আগাছা পরিস্কার করেছি শুধু। যদি তার কোন অভিযোগ থাকে তাহলে ইউনিয়ন পরিষদে শালিস মীমাংসার মাধ্যমে সমাধান করা যেতে পারে।

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ কামরুজ্জামান বলেন, দুই পক্ষই জমিটি দাবি করেন। ঘটনাস্থলে বিশৃঙ্খলা এড়াতে পুলিশ সতর্ক রয়েছে। জমি-জমার বিষয় দুই পক্ষকে দলিলসহ জমি সংক্রান্ত কাগজ দেখে শালিসের মাধ্যমে মীমাংসা করে নিতে বলা হয়েছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।